কমলগঞ্জে করোনা আতঙ্কে রোগীশূন্য ৫০ শয্যা হাসপাতাল

প্রকাশিত: ১০:২৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২০

কমলগঞ্জ উপজেলায় করোনাভাইরাস আতঙ্কে ফাঁকা হয়ে পড়ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। মঙ্গলবার সেখানে ভর্তি ছিল মাত্র মাইসা আক্তার (৭মাস) নামের ১ শিশু রোগী। সে উপজেলা আলীনগর ইউপির চিৎলীয়া গ্রামের লালাই মিয়ার মেয়ে। বিকালে সাড়ে ৫ টায় মাইসা আক্তার নামের অসুস্থ শিশু রোগীকে নিয়ে শিশুটির মা মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চলে যান।

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশুটির মা বলেন, করোনা ভাইরাসের ভয়ে আত্মীয়স্বজন কেউই তাকে দেখতে হাসপাতালে আসেননি। রোগী শূণ্য হাসপাতালে শিশুটিকে নিয়ে অবস্থান করতে ভয় পাচ্ছেন। তাই শিশুটি সুস্থ হওয়ার আগেই বুকে আগলে হাসপাতাল ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। এ সময় ওই ওয়ার্ডে পৌঁছে তাদের ছবি তুলতে চাইলে কান্নায় ভেঙে পড়েন শিশুটির মা। মায়ের কান্নায় ৭ মাসের অবুঝ শিশুটিও কান্না শুরু করলে ছবি তুলা সম্ভব হয়নি।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, প্রায় এক সপ্তাহ ধরেই হাসপাতালে কমছিল রোগীর সংখ্যা। করোনাভাইরাসে মৃত্যুর খবর শোনার পর জনমনে আতঙ্ক বেড়ে গেছে। সেক্ষেত্রে জরুরি হলেও অনেকে হাসপাতালে অবস্থান করতে চাচ্ছেন না। কমলগঞ্জ হাসপাতালে রোববার ২০ জন রোগী ছিলেন, সোমবার মাত্র ৬জন রোগী ভর্তি হন। দিনে আউটডোরে কিছু রোগী চিকিৎসকের পরামর্শ নিলেও অনেকে ভয়ে ভর্তি হতে চাননি।

কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া বলেন, ‘জনগনকে আতঙ্কিত না হবার জন্য আমরা পরামর্শ দিলেও গ্রামের মানুষজন অনেকটা ভয়ে রয়েছেন। তাই তারা হাসপাাতলে আসতে অনিচ্ছুক। বর্তমানে রোগীশূন্য রয়েছে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।